ইউরোপের সেনজেনভুক্ত এখন মোট ২৭টি দেশ রয়েছে। পূর্বে ২৬টি ছিলো, রোমানিয়া যুক্ত হওয়ার পর এখন ইউরোপের সেনজেনভুক্ত দেশের তালিকা দাঁড়িয়েছে মোট ২৭টিতে। কোন কোন দেশ মিলে সেনজেনভুক্ত হয়েছে সেটি বিস্তারিত জানতে পারেন এখানে।

ইউরোপের মোট ২৭টি দেশ নিয়ে সেনজেন অঞ্চল গঠন করা হয়েছে। এই ২৭টি দেশের মাঝে সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ করা হয়না। অর্থাৎ, সেনজেনভুক্ত ২৭টি দেশের মাঝে যেকোনো একটি দেশের ভিসা পেলে আপনি ২৭টি দেশে যাতায়াত করতে পারবেন আলাদা করে ভিসা করা ছাড়াই।

ইউরোপের কোন ২৭টি দেশ মিলে সেনজেন গঠন করা হয়েছে জানতে হলে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়তে হবে। তো চলুন, পোস্টের মূল বিষয়ে ফিরে আসা যাক।

সেনজেন দেশের তালিকা

ইউরোপের মোট ২৭টি দেশ মিলে সেনজেনভুক্ত অঞ্চল গঠন করা হয়েছে। কোন কোন ২৭টি দেশ মিলে সেনজেন গঠন করা হয়েছে তার একটি তালিকা নিচে উল্লেখ করে দেয়া হয়েছে। আপনি যদি নিম্নোক্ত এই ২৭টি দেশের যেকোনো একটির ভিসা নিতে পারেন, তাহলে বাকী সবগুলো দেশে ভিসা ছাড়াই যাতায়াত করতে পারবেন। এজন, আপনার যে দেশের ভিসা হয়েছে সেটি ব্যবহার করতে হবে।

ইউরোপের এই ২৭টি দেশ মিলে একটি চুক্তি করেছে যে তারা তাদের উক্ত দেশগুলোর মাঝে কোনো সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ করবেনা। এর ফলে, এক দেশের মানুষ ভিসা ছাড়া অন্য দেশে যেতে পারছে। ভ্রমণকারীরা একটি দেশের ভিসা দিয়েই বাকী দেশগুলো ভ্রমণ করতে পারছেন। তবে, আপনি সেনজেনভুক্ত একটি দেশের ওয়ার্ক পারমিট দিয়ে অন্য দেশে কাজ করার জন্য যেতে পারবেন না।

সেনজেনভুক্ত ২৭টি দেশের তালিকা

  1. অস্ট্রিয়া
  2. পর্তুগাল
  3. জার্মানি
  4. চেক রিপাব্লিক
  5. পোল্যান্ড
  6. ইটালি
  7. লুক্সেমবার্গ
  8. এস্তোনিয়া
  9. লাটভিয়া
  10. স্পেন
  11. লিথুয়ানিয়া
  12. ফিনল্যান্ড
  13. আইসল্যান্ড
  14. স্লোভেনিয়া
  15. স্লোভাকিয়া
  16. ডেনমার্ক
  17. হাঙ্গেরি
  18. মাল্টা
  19. সুইজারল্যান্ড
  20. বেলজিয়াম
  21. ফ্রান্স
  22. লিচেনস্টাইন
  23. গ্রীস
  24. নরওয়ে
  25. সুইডেন
  26. নেদারল্যান্ডস
  27. ক্রোয়েশিয়া

উপরোক্ত এই তালিকায় যেসব দেশের নাম আছে, সেসব দেশ নিজেদের মাঝে চুক্তি করেছে যে তারা সীমান্তের মাঝে কোনো নিয়ন্ত্রণ রাখবে না। এতে করে, প্রতিটি দেশের মানুষ অন্য দেশে অবাধে এবং সহজেই যাতায়াত করতে পারবে। ভ্রমণকারীরা এক দেশের ভিসা দিয়ে অন্য দেশে যাতায়াত করতে পারবে।

ইউরোপের নন সেনজেন ভুক্ত দেশের তালিকা

ইউরোপের সেনজেনভুক্ত নয় এমন আরও কয়েকটি দেশ আছে। এগুলোর একটি তালিকা নিচে উল্লেখ করে দেয়া হয়েছে।

  1. আলবেনিয়া
  2. অ্যান্ডোরা
  3. আর্মেনিয়া
  4. আজারবাইজান
  5. বেলারুশ
  6. বসনিয়া এবং হার্জেগোভিনা
  7. তুর্কি
  8. ক্রোয়েশিয়া
  9. সাইপ্রাস
  10. জর্জিয়া
  11. কসোভো
  12. ম্যাসেডোনিয়া
  13. মলদোভা
  14. মন্টিনিগ্রো
  15. ইউক্রেন
  16. রাশিয়া
  17. সার্বিয়া

ইউরোপের যেসব দেশ সেনজেনভুক্ত হওয়ার চুক্তিতে স্বাক্ষর করেনি, সেসব দেশকেই নন সেনজেনভুক্ত দেশ বলা হয়। সেনজেনভুক্ত দেশগুলোর নাগরিক একটি দেশ থেকে অন্য দেশে সহজেই যাতায়াত করতে পারে। কিন্তু, নন সেনজেনভুক্ত দেশের মানুষের সেই সুবিধা নেই।

আপনি যদি ইউরোপের সেনজেনভুক্ত দেশের যেকোনো একটির ভিসা করতে পারেন, তাহলে বাকী ২৬টি দেশে সহজেই যাতায়াত করতে পারবেন। তবে, নন সেনজেনভুক্ত দেশের ভিসা করলে শুধুমাত্র সেই দেশটিতেই যাতায়াত করতে পারবেন। এছাড়া, সেনজেনভুক্ত একটি দেশের ভিসা দিয়ে বাকী ২৬টি দেশে শুধু ভ্রমণ করতে পারবেন। কাজ করতে যেতে চাইলে আলাদা করে ওয়ার্ক পারমিট নিতে হবে।

সেনজেন কান্ট্রি লিস্ট ২০২৪

সেনজেনভুক্ত কান্ট্রি লিস্ট এ মোট ২৭টি দেশ আছে। এগুলো হচ্ছে — অস্ট্রিয়া, পর্তুগাল, জার্মানি, চেক রিপাব্লিক, পোল্যান্ড, ইটালি, লুক্সেমবার্গ, এস্তোনিয়া, লাটভিয়া, স্পেন, লিথুয়ানিয়া, ফিনল্যান্ড, আইসল্যান্ড, স্লোভেনিয়া, স্লোভাকিয়া, ডেনমার্ক, হাঙ্গেরি, মাল্টা, সুইজারল্যান্ড, বেলজিয়াম, ফ্রান্স, লিচেনস্টাইন, গ্রীস, নরওয়ে, সুইডেন, নেদারল্যান্ডস, ক্রোয়েশিয়া।

সেনজেন দেশের সুবিধা কি

শেংগেন অঞ্চলের ২৭টি দেশের মধ্যে আপনি সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ ছাড়াই ভ্রমণ করতে পারবেন। অর্থাৎ, একবার ভিসা পেলে আপনি চাইলে যেকোনো দেশে যেতে পারবেন। সীমান্ত পারাপারে সময় নষ্ট করতে হবে না, ফলে ভ্রমণের সময় ও অর্থ দুটোই সাশ্রয় হবে। বিভিন্ন দেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের সংস্পর্শে আসার সুযোগ তৈরি হয়।

শেংগেন অঞ্চলে ভ্রমণের জন্য আপনাকে একটি শেংগেন ভিসা পেতে হবে। শেংগ্যাং ভিসা পেলে তবেই আপনি ইউরোপের উক্ত ২৭টি দেশের মাঝে অবাধে যাতায়াত করতে পারবেন।

FAQ

সেনজেনভুক্ত দেশ কয়টি?

সেনজেনভুক্ত দেশ মোট ২৭টি। এই ২৭টি দেশের নাগরিকরা একটি দেশ থেকে অন্য দেশ ভিসা ছাড়া যাতায়াত করতে পারে। এছাড়াও, একটি দেশের ভিসা থাকলে পর্যটকরা অন্য দেশে ভিসা ছাড়া ভ্রমণ করতে পারে।

ক্রোয়েশিয়া কি সেনজেন ভুক্ত দেশ?

হ্যাঁ, ক্রোয়েশিয়া একটি সেনজেনভুক্ত দেশ। ২০২৩ সালের শুরুর দিকে ক্রোয়েশিয়া সেনজেনভুক্ত দেশের তালিকায় যুক্ত হয়েছে।

সারকথা

আজকের এই ব্লগে আপনাদের সাথে সেনজেনভুক্ত দেশের তালিকা এবং ইউরোপের নন সেনজেনভুক্ত দেশের তালিকা শেয়ার করেছি। এছাড়াও, সেনজেনভুক্ত দেশের সুবিধা কী কী এসব বিষয় জানতে পারবেন এই পোস্ট থেকে। এমন আরও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ঘুরে দেখুন।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *