কানাডা জব ভিসা ২০২৪ এর জন্য আবেদন করতে চাচ্ছেন কিন্তু কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা খরচ কত টাকা জানেন না? এই পোস্টে কানাডা ভিসা ২০২৪ নিয়ে বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করা হয়েছে।

কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা কিংবা কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা, দুইটি ভিসার চাহিদা অনেক। আমাদের দেশের অধিকাংশ শিক্ষার্থী এবং প্রবাস যেতে ইচ্ছুক এমন অনেকেই কানাডা যেতে চান। কিন্তু, কানাডা ভিসা আবেদন করার বিস্তারিত পদ্ধতি অনেকেই জানেন না।

এছাড়াও, যারা কানাডা যেতে ইচ্ছুক, তারা কানাডা ভিসা খরচ কত টাকা এটি জানতে ইচ্ছুক। তো চলুন, কানাডা ভিসা আবেদন করার পদ্ধতি এবং কানাডা যেতে কত টাকা লাগে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

কানাডা জব ভিসা

প্রতি বছর কানাডা থেকে প্রচুর পরিমাণে শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হয়। আমাদের দেশের সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ কানাডা জব ভিসায় গিয়ে প্রচুর টাকা উপার্জন করে থাকেন। কানাডা যেতে হলে প্রথমেই একটি ওয়ার্ক পারমিট নিতে হবে। এরপর, এই ওয়ার্ক পারমিট দিয়ে ভিসা আবেদন করে সহজেই কানাডা যেতে পারবেন।

কানাডা কাজের ভিসা পাওয়ার জন্য কিছু শর্ত রয়েছে। নিচে কানাডা যেতে কি কি লাগবে সহ আরও বিস্তারিত কিছু তথ্য নিয়ে আলোচনা করেছি। চলুন, বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

কানাডা জব ভিসা ২০২৪

কানাডা সরকার ২০২৪ সালে জব ভিসা চালু করেছে। অনলাইনের মাধ্যমে কানাডা ওয়ার্ক পারমিট নেয়ার পর জব ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। অতঃপর, কানাডা জব ভিসা নিয়ে সরকারিভাবে অল্প খরচেই কানাডা যেতে পারবেন।

অনেকেই কানাডা যাওয়ার জন্য বিভিন্ন দালাল সহ বেসরকারি এজেন্সির সহযোগিতা নিয়ে থাকেন। কিন্তু, কানাডা যেতে কি কি লাগে সহ কানাডা ভিসা আবেদন করার নিয়ম যদি আপনার জানা থাকে, তবে কারও সহযোগিতা ছাড়াই অল্প খরচে কানাডা যেতে পারবেন।

কানাডা জব ভিসা ২০২৩ এর পর এবার ২০২৪ সালেও ভিসা আবেদন নিচ্ছে। তাই, কানাডা যেতে কি কি লাগবে তা নিচে উল্লেখ করে দিয়েছি। কানাডা যেতে চাইলে নিম্নলিখিত ডকুমেন্টগুলো থাকতে হবে এবং শর্তগুলো অবশ্যই মানতে হবে।

আরও পড়ুন – অনলাইনে কানাডা ভিসা আবেদন ফরম পূরণের নিয়ম

কানাডা যেতে কি কি লাগবে

কানাডা যেতে কিছু ডকুমেন্ট এবং তথ্য লাগে। নিচে এসব তথ্য বিস্তারিত তালিকা আকারে উল্লেখ করে দেয়া রয়েছে:

  • বয়স সর্বনিম্ন ১৮ বছর
  • শিক্ষাগত সার্টিফিকেট (কমপক্ষে এইচএসসি পাশ)
  • IELTS সার্টিফিকেট (IELTS স্কোর কমপক্ষে ৬)
  • অভিজ্ঞতা সনদ (কাজের দক্ষতার প্রমাণপত্র)
  • ব্যাংক একাউন্টের কমপক্ষে ৩০ লক্ষ টাকা লেনদেন করার স্টেটমেন্ট
  • পাসপোর্ট (৬ মাস মেয়াদ)
  • জাতীয় পরিচয়পত্র
  • মেডিকেল রিপোর্ট
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  • ভিসা ফি পরিশোধের রশিদ
  • বিএমইটি রেজিস্ট্রেশন

কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আবেদন করতে হলে উপরোক্ত কাগজগুলো লাগবে। এছাড়াও, আপনাকে বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে। বৈধ পাসপোর্ট থাকতে হবে। তবেই, এসব তথ্য দিয়ে কানাডা জব ভিসা ২০২৪ আবেদন করতে পারবেন।

কীভাবে কানাডা কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে, ওয়ার্ক পারমিট সংগ্রহ করতে হবে তা নিয়ে আরও বিস্তারিত নিচে আলোচনা করেছি। চলুন, জেনে নেয়া যাক।

আরও পড়ুন —

কানাডা ওয়ার্ক পারমিট সংগ্রহ

কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা সংগ্রহ করার জন্য প্রথমেই Jobbank.gc.ca ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে। এরপর, সার্চ বক্সে আপনি যে কাজ করতে ইচ্ছুক বা যে কাজের দক্ষতা আছে সেটি লিখে সার্চ করুন। পাশের বক্সে পুরো কানাডা সিলেক্ট করতে পারেন বা কানাডার যেকোনো অঞ্চল সিলেক্ট করতে পারেন। অতঃপর, সার্চ বাটনে ক্লিক করুন।

এভাবে করে কানাডা জব খুঁজতে পারবেন। আপনার পছন্দমতো যেকোনো কাজের নিয়োগ দেখে সেটিতে ক্লিক করে সকল প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে ওয়ার্ক পারমিটের জন্য আবেদন করুন। ওয়ার্ক পারমিট আবেদন করার পর অপেক্ষা করতে হবে। ওয়ার্ক পারমিট পেলে ভিসা আবেদন করতে পারবেন।

এছাড়াও, কানাডা ওয়ার্ক পারমিটের জন্য Canada.ca ওয়েবসাইট ব্যবহার করা যায়। নিচে কানাডা ভিসা আবেদন করার বিস্তারিত পদ্ধতি উল্লেখ করে দিয়েছি।

আরও পড়ুন – অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা করার উপায়

কানাডা ভিসা আবেদন করার নিয়ম

কানাডা জব ভিসা আবেদন করার জন্য প্রথমেই Canada.ca ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে। এরপর, Immigration and citizenship অপশনে ক্লিক করে Work সিলেক্ট করতে হবে। অতঃপর, Get a work permit লেখার উপর ক্লিক করে সকল ধাপ অনুসরণ করে একটি ওয়ার্ক পারমিটের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করার পদ্ধতি

কানাডা জব ভিসা পাওয়ার একমাত্র পদ্ধতি হচ্ছে একটি ওয়ার্ক পারমিট সংগ্রহ করা। কানাডা ওয়ার্ক পারমিট সংগ্রহ করার জন্য Canada.ca ওয়েবসাইট কিংবা Jobbank.gc.ca ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। এরপর, আপনার পছন্দের কাজের ওয়ার্ক পারমিটের জন্য সকল নিয়ম অনুসরণ করে আবেদন করুন। আবেদন করার পর কানাডার উক্ত কোম্পানি আপনার সাথে যোগাযোগ করে ভিসা প্রসেসিং এ সহযোগিতা করবে।

এভাবে করে আপনি বাংলাদেশ থেকে কাজের ভিসায় কানাডা যেতে পারবেন অনেক সহজেই। আলাদা করে কোনো দালাল বা বেসরকারি ভিসা এজেন্সির সহযোগিতা নিতে হবে না।

কানাডা জব ভিসা খরচ কত টাকা

কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য হোটেল বুকিং, বিমান টিকেট, এজেন্সি/ কনস্যুলেট ফি, মেডিকেল রিপোর্ট, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স, ভিসা প্রসেসিং, ওয়ার্ক পারমিট সংগ্রহ সহ মোট ৭ লক্ষ টাকার মতো লেগে থাকে। তবে কোনো দালালের সহযোগিতা নিলে এর থেকে বেশি লাগবে।

এছাড়াও, আপনি চাইলে যেকোনো কানাডা ভিসা এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করে কানাডা ভিসা নিতে পারবেন। তবে, কানাডা কাজের ভিসা নিতে কোনো ভিসা এজেন্সির সহযোগিতা নিলে খরচ বেশি হবে।

অনেক দালালের সহযোগিতায় কানাডা যেতে পারবেন। এছাড়াও, ভিসা এজেন্সির সহযোগিতায় ও যেতে পারবেন। তবে, তাদের সহযোগিতা নিলে কানাডা যেতে ১০ থেকে ১২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লাগবে। যা আপনি সরকারিভাবে কানাডা জব ভিসার আবেদন করলে ৭ লক্ষ টাকার মাঝেই হয়ে যাবে।

আরও পড়ুন – ইতালি ভিসা খরচ ২০২৪ কত

কানাডা জব ভিসা আবেদন ফরম ২০২৪

কানাডা কাজের ভিসা পেতে হলে ভিসা আবেদন ফরম বা ওয়ার্ক পারমিট ফরম পূরণ করতে হবে। কানাডা জবের ভিসা আবেদন ফরম ২০২৪ পাবেন Canada.ca বা Jobbank.gc.ca ওয়েবসাইট ভিজিট করলে। এই দুইটি ওয়েবসাইট থেকে ভিসা আবেদন ফরম পূরণ করার মাধ্যমে ওয়ার্ক পারমিট সংগ্রহ করতে পারবেন।

কানাডা জব সার্কুলার ২০২৪

কানাডা জব সার্কুলার ২০২৪ প্রকাশিত হয়েছে। আপনি যদি কানাডা যেতে চান, তবে ফেব্রুয়ারি মাসের শুরুর দিকে Canada Work Permit ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। যে কাজের উপর আপনার দক্ষতা আছে সেই কাজের নিয়োগ খুঁজে সেখানে আবেদন ফরম পূরণ করে সাবমিট করতে হবে। তাহলে কানাডা যেতে পারবেন অনেক সহজেই।

সরকারিভাবে কানাডা যাওয়ার উপায় ২০২৪

সরকারিভাবে কানাডা যাওয়ার জন্য Canada.ca ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে। এরপর, Immigration and Citizenship অপশনে ক্লিক করে Work অপশনে ক্লিক করতে হবে। অতঃপর, Get a work permit লেখার উপর ক্লিক করে ওয়ার্ক পারমিট ফরম পূরণ করতে হবে। এসব ধাপ পূরণ করলে সরকারিভাবে কানাডা যেতে পারবেন।]

FAQ

কানাডা যেতে কত টাকা লাগে?

কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে ৭-৮ লক্ষ টাকা লেগে থাকে। তবে, দালাল বা ভিসা এজেন্সির সহযোগিতা নিলে কানাডা যেতে ১০-১২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লাগতে পারে।

কানাডা কাজের ভিসা পেতে বয়স কত লাগে?

কানাডা কাজের ভিসা পেটে সর্বনিম্ন ১৮ বছর বয়স হতে হবে।

কানাডা কাজের ভিসা কীভাবে পাওয়া যায়?

কানাডা কাজের ভিসা পেতে হলে Canada.ca ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে। এরপর, ওয়ার্ক পারমিটের জন্য আবেদন করতে হবে। কানাডা ওয়ার্ক পারমিট পেয়ে গেলে কোম্পানির সহযোগিতা নিয়ে ভিসা প্রসেসিং করে কানাডা যেতে পারবেন।

এতক্ষণ যাবত আপনাদের সাথে কানাডা জব ভিসা আবেদন করার নিয়ম, কানাডা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা কত টাকা লাগে সহ আরও কিছু তথ্য নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। ভিসা সম্পর্কিত আরও তথ্য পেতে প্রতিদিন আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 Comments